শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ১০:১৬ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ
দিনাজপুর থেকে প্রকাশিত সরকারি মিডিয়া তালিকাভুক্ত দৈনিক খবর একদিন পএিকার জন্য খানসামা, হাকিমপুর, ঘোড়াঘাট ও চিরিরবন্দরের জন্য উপজেলা প্রতিনিধি আবশ্যক। মেইল : khaborekdin2012@gmail.com। মোবাইল : 01714910779
সর্বশেষঃ
ফুলবাড়ীতে ঝড়ে উড়ে গেল প্রধান মন্ত্রীর উপহারের ঘরের চাল ফুলবাড়ীতে সড়ক দূর্ঘটনায় চালকসহ আহত ১০ যাত্রী ফুলবাড়ীতে আনসারদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ বীরগঞ্জে বজ্রপাতে এক নারী নিহত দিনাজপুরে সেন্ট ফিলিপস্ এলামনাই ফোরাম এর উদ্যোগে ঈদ উপহার প্রদান পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে হুইপ ইকবালুর রহিম এমপির শুভেচ্ছা দিনাজপুরে বিভিন্ন আয়োজনে আন্তর্জাতিক নার্সেস দিবস পালিত ত্যাগের মধ্যে যে আনন্দ আছে ভোগের মধ্যে তা নেই-হুইপ ইকবালুর রহিম বাংলাদেশের উন্নতির পথে বাধা সৃষ্টি করা স্বাধীনতা বিরোধীদের অপপ্রয়াস- এমপি গোপাল দিনাজপুর সরকারী মহিলা কলেজের উদ্যোগে অস্বচ্ছল জনগোষ্ঠীদের মাঝে খাদ্য সহায়তা প্রদান

স্ত্রী হত্যার দায়ে শ্রীমঙ্গলে সাংবাদিক গ্রেপ্তার

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে স্ত্রীকে হত্যার দায়ে দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকার শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি অনুজকান্তি দাশকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার (৫ ডিসেম্বর) বিকালে উপজেলার পূর্বাশা আবাসিক এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এর আগে গত ২৯ নভেম্বর অনুজকান্তি দাশের স্ত্রী অনিতা রানী দাশ (২৫) সিলেটের জালালাবাদ রাগিব রাবেয়া মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। মারা যাওয়ার পর সিলেট থেকে লাশ শ্রীমঙ্গলে নিয়ে দাহ করার প্রস্তুতি নেয় অনুজকান্তি দাশ ও তার পরিবার। এসময় অনিতার বাবার বাড়ির লোকজন দাহ করার কাজে বাধা দেন, এবং থানায় অভিযোগ দাখিল করেন। পরে অভিযোগ পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। এই বিষয়ে অনিতা রানী দাশের পিতা দিলীপ দাশ বাদী হয়ে গত ৩ নভেম্বর শ্রীমঙ্গল থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

মৃত অনিতা রানীর দাশের পিতা দিলীপ দাশ বলেন, আমার বাড়ি হবিগঞ্জের বানিয়াচং এলাকায়। ২০১৭ সালের দিকে পারিবারিকভাবে শ্রীমঙ্গলের নরেশ চন্দ্র দাশের ছেলে অনুজকান্তি দাশের কাছে আমার মেয়েকে বিয়ে দেই। বিয়ের পর কয়েকদিন পর থেকেই অনুজকান্তি দাশ নেশাগ্রস্ত হয়ে প্রায়ই আমার মেয়েকে মারধর করে আমার বাড়িতে পাঠিয়ে দিতো। আমার মেয়ে মারা যাওয়ার কয়েকদিন আগে মেয়ে আমার বাড়িতেই সুস্থ্ অবস্থায় ছিলো। স্থানীয় মুরব্বিরা আমার মেয়েকে শালিসের মাধ্যমে শ্রীমঙ্গলে নিয়ে আসে।

ঘটনার দুইদিন আগেও আমি শ্রীমঙ্গল এসে আমার মেয়েকে সুস্থ্ অবস্থায় দেখে যাই। ঘটনার দিন রাতে অনুজকান্তি দাশ ও তার পরিবারের লোকজন আমার মেয়েকে মারধর করে জখম করে শ্রীমঙ্গলের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে সেখান থেকে সিলেট হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর আমার মেয়ে মারা যায়। আমার মেয়েকে এভাবে নির্যাতন করে হত্যার সুষ্ঠ বিচার দাবি করছি।

শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুছ ছালেক বলেন, আমরা তদন্ত সাপেক্ষে শুক্রবার মামলাটি রেকর্ড করি। লাশের সুরতহাল রিপোর্ট ও ময়নাতদন্ত শেষে অনুজকান্তি দাশের বিরুদ্ধে প্রাথমিকভাবে সত্যতা পাওয়ায় আজ তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন