ফুলবাড়ীর পল্লীতে পারিবারিক কলহে এক ব্যক্তি খুন

দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার কাজিহাল ইউপির জলেশ্বরী মিরপুর গ্রামের সীমান্তবর্তী এলাকায় পারিবারিক কলহে মোঃ বেলাল (৪০) নামে এক ব্যক্তি খুন হয়।

গতকাল বৃহস্পতিবার ফুলবাড়ী উপজেলার কাজিহাল ইউপির জলেশ্বরী মিরপুর গ্রামের অছিমুদ্দিন এর পুত্র মোঃ বেলাল কে গভীর রাত্রে কে বা কাহারা হত্যা করে সীমান্তের নিকটস্ত স্থানে ফেলে রেখে যায়।

সকাল বেলা স্থানীয় লোকজন তার লাশ সীমান্ত থেকে ১৫০ গজ ভিতরে পড়ে থাকা দেখে গ্রামের লোকজনকে এবং আমড়া বিওপির বিজিবির লোকজনকে খবর দেন। তারা খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে এসে তার লাশ পড়ে থাকা দেখেন। এদিকে স্থানীয় লোকজন জানান, পারিবারিক কলহের কারণে কে বা কাহারা তাকে হত্যা করে লাশ ফেলে রাখে।

এ বিষয়ে ফুলবাড়ী ২৯ বিজিবির অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল শরীফউল্লাহ্ আবেদ (এসজিপি) সাংবাদিককে জানান, সীমান্তে এ ধরনের কোন ঘটনা ঘটেনি। সীমান্তে বিজিবির সদস্যরা সর্বদায় টহলে ছিলেন। ভারতীয় বিএসএফ এর তরফ থেকে এ ধরনের কোন ঘটনা ঘটেনি বলে জানা যায়। খবর পেয়ে আমি তাৎক্ষণিক ঘটনা স্থলে গিয়েছি লাশের শরীরে কোন গুলির চিহ্ন নেই তবে হত্যাকারীরা তার হাত কেটে নিয়ে যায়।

সূত্র মতে জানা যায় তার পারিবারিক বিরোধ ছিল এ কারণেই কে বা কাহারা তাকে হত্যা করে তার বাড়ী সংলগ্ন সীমান্ত এলাকায় তার লাশ ফেলে রেখে যায়। তিনি আরও জানান, বিজিবির সহযোগীতায় লাশ উদ্ধার করা হয়। এদিকে কাজিহাল ইউপির চেয়ারম্যান মানিক রতন এর সাথে হত্যার বিষয়ে কথা বললে তিনি জানান, সন্দেহ করা হচ্ছে এই ঘটনা তার পারিবার থেকেই ঘটতে পারে। বিএসএফ গুলি করলে শরীরে গুলির চিহ্ন থাকত। কিন্তু তার এক হাত কেটে নিয়ে যায়। এ কারণে বিএসএফ কে দোষ দেওয়া যাচ্ছে না। ফুলবাড়ী ২৯ বিজিবি সকাল ১১ টায় লাশ উদ্ধার করে ফুলবাড়ী থানা পুলিশের নিকট হস্তান্তর করেন। ফুলবাড়ী থানার পুলিশ লাশটি ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর মর্গে পাঠান। এই ঘটনায় নিহতের ভাই বাদী হয়ে ফুলবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন