ব্যাটমিন্টন প্রতিযোগিতা উদ্বোধন ও সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে আলোচকদের অভিমত কবি কাদের বক্স সীমাবদ্ধতা অতিক্রম করে কালজয়ী লেখক হিসেবে আবির্ভূত হয়েছিলেন

আজহারুল আজাদ জুয়েল, দিনাজপুর : দিনাজপুরের প্রথিতযশা কবি মরহুম কাদের বক্স এর স্মৃতি স্মরণে ব্যাটমিন্টন প্রতিযোগিতা উদ্বোধন ও ৮ বিশিষ্ট ব্যক্তিকে সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে। এ উপলক্ষে ১৪ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় আয়োজিত অনুষ্ঠানে আলোচকগণ অভিমত প্রকাশ করেছেন যে, কবি কাদের বক্স সকল সীমাবদ্ধতা অতিক্রম করে কালজয়ী লেখক হিসেবে আবির্ভূত হয়েছিলেন। দিনাজপুর শহরের লালবাগে কবি কাদের বক্স এর বাড়ির সামনে ‘কবি কাদের বক্স স্মৃতি পর্ষদ’ এর উদ্যোগে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন এলাকার প্রবীণ ব্যক্তি আজিজুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে গবেষক ও কথা সাহিত্যিক ড. মাসুদুল হক প্রধান অতিথি, সঙ্গীত শিল্পী নজরুল ইসলাম, কবি শাহবাজ আলী খান ও সাংবাদিক-গবেষক আজহারুল আজাদ জুয়েল বিশেষ অতিথি ছিলেন।
গবেষক ও কথা সাহিত্যিক ড. মাসুদুল হক প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, কাদের বকস এর ভিতরে যে অন্তসত্বা ছিল তা সঠিকভাবে ফুটিয়ে কবিতা ও গানের মাধ্যমে তিনি সমাজকে উপহার দিয়েছেন। তার কবিতা তাকে অমর করে রাখবে। তবে কবিতাগুলো সংরক্ষণের ব্যবস্থা করতে হবে।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে নজরুল ইসলাম বলেন, আমি গানের চর্চা করলেও কখনো সুরকার ছিলাম না। কবি কাদের বকসের কবিতাকে গানে রুপ দিতে গিয়ে সুরকার হয়েছি, যা আমাকে নতুন পরিচিতি দিয়েছে।
কবি শাহবাজ আলী খান বলেন, কাদের বকস ছোট ছোট কবিতার মধ্যে অন্তর্নিহিত ভাব ফুটিয়ে তুলতেন।
সাংবাদিক-গবেষক আজহারুল আজাদ জুয়েল বলেন, কবি কাদের বকসকে ছোট থেকে চিনতাম। বড় হওয়ার পর কবি হিসেবে দেখেছি এবং তাঁর কাব্যিক প্রতিভায় মুগ্ধ হয়েছি। তিনি পরিবারের কাছে যেমন ভাল মানুষ ছিলেন, তেমনি কাব্য প্রতিভার মাধ্যমে দিনাজপুর ছাড়িয়ে পুরো বাংলাদেশে একজন শক্তিশালী কবি হিসেবে পরিচিত হয়ে উঠছিলেন।
অনুষ্ঠানে কবির জ্যোষ্ঠ পুত্র রবিউল আউয়াল, সমাজকর্মী জুলফিকার আলী স্বপন ও মকসেদুল আলম দুলাল বক্তব্য রাখেন। পরে প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিবর্গ সহ ৮ জন বিশিষ্ট ব্যক্তির হাতে ‘কবি কাদের বকস স্মৃতি পদক-২০২১’ তুলে দেন কবির দুই পতœী আনজুমান আরা বেগম ও সোনাই বানু। পদক প্রাপ্ত অন্য ব্যক্তিগণ হলেন কবি মোহাম্মদ আমজাদ আলী, কবি মোমিননুল কাদের খোকন, এক সময়ের বিশিষ্ট হাডুডু খেলোয়াড় আজির হোসেন ও খাজির হোসেন। পদক হস্তান্তরের সময় কবি পরিবারের সদস্য ফেরদৌস বাহার, দিলারা আলম পারুল, নাসরিন আউয়াল, হাবিবা সুলতানা, হাসিনা কুমকুম, আলমাস পারভীন প্রমুখ মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরাণ তেলাওয়াত করেন কবির নাতি মাহদীর। কবিসহ এলাকার মৃতদের আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া পরিচালনা করেন দক্ষিণ লালবাগ জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা মুনসেফ আলী। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সাজেদুর রহমান সাজু। সার্বিক সহয়োগিতা করেন শাহীনুর আলম শাহীন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন