নবাবগঞ্জে মাদকদ্রব্য ডেন্ডি আঠার নেশায় আসক্ত গ্রামের কিশোররা

নবাবগঞ্জ সংবাদদাতা ॥ দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে মাদকাসক্ত কিশোররা সেবন করছে ডেন্ডি আঠা। মাদকাসক্ত কথা শুনতেই কত জঘন্য না মনে হয়।
মাদক সেবনে বড়দের পাশাপাশি কিশোররাও জড়িত। ডেন্ডি বলা হচ্ছে জুতার আঠা। এই আঠা ব্যবহার করা হয় জুতা বা চামড়া জোড়া লাগানো কাজে। সেই আঠা ব্যবহার করছে মাদকাসক্ত কিশোররা । বেশির ভাগই গ্রামের কিশোররা ডেন্ডি আঠা সেবন করে থাকে।
এই মাদকাসক্ত কিশোররা প্রায়ই গ্রামেরই। সার্বক্ষণিক তারা জমির আম বাগানে বা যোপ যারের মধ্যে ঘোরাঘুরি করে। তারা যে পরিশ্রম করে সারাদিনে যে টাকা পায় তা ডেন্ডি আঠা কিনে একসাথে ৪/৫ জন নেশা সেবন করে। এদের কারণে গ্রামের সাধারণ মানুষেরা অতিষ্ঠ।
জানা যায়, তারা সারাদিন যা রোজগার করে তা দিয়ে বাজার থেকে ডেন্ডি কিনে নিয়ে আর পলিথিন যোগার করে তার মধ্যে আঠা ঢেলে মরণ নেশা সেবন করে এটি একটি মারাত্মক অবস্থা তৈরি করে এই নেশা টি সেবন করলে, কিন্তু এটি দেখার ও বলার কেউ নেই।
বাংলাদেশে এখন বহুল আলোচিত মাদকদ্রব্যগুলো হলো-ইয়াবা, ফেন্সিডিল, হিরোইন ও গাঁজা। এসব নেশার পাশাপাশি বাড়ছে ডেন্ডি আঠা।
নাম বলতে অনিচ্ছুক এক মাদকাসক্ত কিশোর জানান, আমাদের কম টাকার নেশা, এর দাম ৩০টাকা। অনেক সময় ধরে সেবন করতে পারি। বর্তমানে নবাবগঞ্জ উপজেলার প্রায়ই গ্রামেই কম বেশি মাদক নেশা সেবন করতে দেখা যায়।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন