মঙ্গলবার, ১৫ Jun ২০২১, ১০:৩৮ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ
দিনাজপুর থেকে প্রকাশিত সরকারি মিডিয়া তালিকাভুক্ত দৈনিক খবর একদিন পএিকার জন্য খানসামা, হাকিমপুর, ঘোড়াঘাট ও চিরিরবন্দরের জন্য উপজেলা প্রতিনিধি আবশ্যক। মেইল : khaborekdin2012@gmail.com। মোবাইল : 01714910779
ব্রেকিং নিউজঃ
দিনাজপুরে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ বিষয়ক সচেতনতামূলক প্রচারণার উদ্বোধন দিনাজপুরে ভুমিহীন আন্দোলন রংপুর বিভাগীয় মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত নিখোঁজ ৪ তরুণের সন্ধানের দাবীতে দিনাজপুরে মানববন্ধন জিয়া হার্ট ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে সাবেক মন্ত্রী মরহুমা খুরশীদ জাহান হকের ১৫তম মৃত্যুবার্ষিকী পালন অঞ্জলী নারী উন্নয়ন সমবায় সমিতিকে নিবন্ধন ও সনদপত্র প্রদান দিনাজপুর নাট্য সমিতি শিল্পকলা পদকে মনোনীত হওয়ায় বঙ্গবন্ধু’র প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন নবনির্বাচিত কমিটির বীরগঞ্জে নিখোঁজের একদিন পর কৃষকের মৃতদেহ উদ্ধার নবাবগঞ্জে আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ক সভা অনুষ্ঠিত বিরামপুরে করোনা প্রতিরোধে কঠোর অবস্থানে প্রশাসন, মাস্ক না পরলেই জরিমানা খানসামায় বেড়েছে জ্বর-ডায়রিয়া রোগী ॥ জনবল সংকটে সেবা দিতে হিমশিম খাচ্ছে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স

ঘোড়াঘাটে দু’শতাধিক পরিবার পানি বন্দী থেকে মুক্তি পেল

ঘোড়াঘাট সংবাদদাতা ॥ দিনাজপুর-৬ আসনের সংসদ সদস্য ও সমাজকল্যাণ মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য শিবলী সাদিকের তৎপরতায় পানি বন্দী জীবন থেকে মুক্তি পেলেন ঘোড়াঘাট উপজেলার শালিকাদহ গ্রামের প্রায় ২ শতাধিক পরিবার। গত মঙ্গলবার দুপুরে পানি বন্দী হয়ে পরা দুটি গ্রাম পরিদর্শন করে সাংসদ তাৎক্ষণিক ব্যক্তিগত ভাবে পানি মুক্ত করতে ৫০ হাজার টাকা প্রদান করেন।
জানা যায়, উপজেলার বুলাকীপুর ইউনিয়নের শালিকাদহ গ্রামের পাশ দিয়ে করতোয়া নদী প্রবাহিত হয়েছে। বর্ষা মৌসুমে এই গ্রামের পানি স্থানীয় দুলা মিয়ার আবাদী জমির উপর দিয়ে গিয়ে করতোয়া নদীতে পড়তো।
গত কয়েকদিন আগে আবাদী জমির মালিক দুলু মিয়া তার জমিতে পুকুর খনন করে। পাশাপাশি উচু করে পুকুরের পাড় বেঁধে দেয়।
ফলে গত এক সপ্তাহে ভারী বৃষ্টিতে শালিকাদহ গ্রামের প্রায় দুই শতাধিক পরিবার পানি বন্দী হয়ে পড়ে। স্থানীয় এক ব্যক্তি পানি বন্দী ওই গ্রামের ছবি তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে শেয়ার করেন। ছবি গুলো সাংসদ শিবলী সাদিকের নজরে আসলে, তিনি গ্রামটি পরিদর্শন করেন। পরে খননকৃত পুকুরের চারপাশে দেওয়া পাড় সরিয়ে নিতে ওই পুকুরের মালিককে অনুরোধ করেন। সাংসদের অনুরোধে পুকুরের মালিক বাঁধ সরিয়ে নিতে সম্মতি প্রকাশ করেন। বাঁধ সরিয়ে নেওয়ার খরচ বাবদ সাংসদ পুকুরের মালিককে ৫০ হাজার টাকা প্রদান করেন। শালিকাদহ গ্রামের পানি বন্দী হয়ে থাকা কৃষক মোজাম্মেল হক বলেন, পুকুর খনন করায় আমাদের বাড়ির আঙিনায় পানি উঠিছে। পুকুরের মালিককে বলার পরেও গুরুত্ব দেন না তিনি। দিনাজপুর-৬ আসনের সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক বলেন, ব্যক্তি মালিকানাধীন জমিতে পুকুর খনন এবং এর চারপাশে উচু করে পুকুরের পাড় নির্মান করায় বৃষ্টির পানিতে প্রায় ২ শতাধিক পরিবার পানি বন্দী হয়ে পড়েছিল। ফেসবুকে ছবিটি দেখে আমি ওই গ্রামে গিয়েছিলাম। পুকুরের মালিককে নগত অর্থ দিয়েছে। পুকুরের মালিক কথা দিয়েছেন তিনি আজকে থেকেই পুকুরের পাড় সরানোর ব্যবস্থা করবেন। আর পুকুরের পাড়টি সরালেই শালিকাদহ গ্রাম থেকে পানি পাশ্ববর্তী নদীতে গিয়ে পড়বে। ফলে ২ শতাধিক পরিবার পানি বন্দীর হাত থেকে রক্ষা পাবে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ঘোড়াঘাট উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুর রাফে খন্দকার সাহানশা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাফিউল আলম, থানা অফিসার ইনচার্জ আজিম উদ্দিন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আজিজার রহমকন, বুলাকীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহফুজার রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগ, আওয়ামী যুবলীগ, ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন