কুড়িগ্রামে নদ-নদীর পানি বাড়ছে, অর্ধশত চর প্লাবিত

দৈনিক খবর একদিন : উজানের পানির ঢল ও অব্যাহত বৃষ্টিপাতে কুড়িগ্রাম জেলার উপর দিয়ে প্রবাহিত ব্রহ্মপুত্র, ধরলা, তিস্তা ও দুধকুমারসহ সবকটি নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টায় ধরলা নদীর পানি সেতু পয়েন্টে বিপৎসীমার মাত্র ২৫ সেন্টিমিটার ও তিস্তার পানি কাউনিয়া পয়েন্টে বিপদসীমার ২৪ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়। পানি বাড়ায় ধরলা ও তিস্তার অন্তত অর্ধশত চরের নিচু এলাকা প্লাবিত হয়ে পাট, ভুট্টা, আউস ধান, বীজতলা ও সবজি ক্ষেত নিমজ্জিত হয়েছে। ধরলার ভাঙনে সারডোবে বিকল্প বাঁধের অবশিষ্টাংশ ভেঙে পানি ঢুকে ভাটিতে থাকা ১৫টি গ্রাম নিমজ্জিত হয়েছে। এসব এলাকার গ্রামীণ সড়ক ডুবে যাওয়ায় বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে যোগাযোগ। পানি বাড়ার ফলে তিস্তার গাবুর হেলান, খিতাবখা, ধরলার সারডোব, পাটেশ্বরীসহ কয়েকটি পয়েন্টে নদী ভাঙন তীব্র হয়েছে। সারডোবে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের ৫০ মিটার অংশ নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে। গত ৩ দিনে এখানে ২০টি পরিবার ভিটামাটি হারিয়েছে। সারডোবের বিকল্প বাঁধের কিছু অংশ রক্ষায় বুধবার সারারাত পাহারা বসিয়েছিল গ্রামবাসী। তারা মাটি কেটে ও বালির বস্তা ফেলে বাঁধ রক্ষার চেষ্টা করে। কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী ওমর ফারুক জানান, সারডোবে পানি উন্নয়ন বোর্ড ড্রেজার বসিয়ে বালু ফেলে বাঁধটি উঁচু করার পাশাপাশি ফেলছে জিও ব্যাগ। যেকোন মূল্যে বিকল্প বাঁধের বাকি অংশ রক্ষা করা হবে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন