ঠাকুরগাঁওয়ে করোনায় বাবা-ছেলের মৃত্যু

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি : করোনা ভাইরাসের আক্রান্ত হয়ে ঠাকুরগাঁওয়ে চার ঘন্টার ব্যবধানে বাবা ইয়াকুব আলী(৭০) ও ছেলে আজগর আলী(৫৫)’র মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার(১জুন রাতে) দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরে মারা যায় ইয়াকুব আলী। অপরদিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে মারা যায় ছেলে আজগর আলী।

বিষয়টি মোবাইল ফোনে নিশ্চিত করেছেন হরিপুর উপজেলার চেয়ারম্যান জিয়াউল হাসান মুকুল। তিনি নিহত আজগর আলীর খালাতো ভাই।

আজগর আলী ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলার দনগাঁওয়ের গ্রামের বাসিন্দা। তিনি হরিপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও স্থানীয় শীতলপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছিলেন।

উপজেলা স্বাস্থ্যবিভাগের তথ্য মতে,গত ২৫ জুন ইয়াকুব আলী জ্বর কাশি ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে যায়। এসম তাকে করোনা টেস্টের পরামর্শ দেয় চিকিৎসক। পরে পরিবারের স্বজনেরা তাকে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজে ভর্তি করায়। সেখানেই তার করোনা পজেটিভ আসে তার। পাঁচ দিন পর ইয়াকুব আলীর ছেলে আজগর আলীর হরিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নমুনা নেয়া হয়। এসম তার করোনার পজেটিভ হলে সেইদিন রাতেই তাকে দিনাজপুর আব্দুর রহিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

হরিপুর উপজেলার চেয়ারম্যান জিয়াউল হাসান মুকুল বলেন,করোনার পজেটিভ হলে দিনাজপুরের মেডিকেল কলেজে প্রথমে খালকে ভর্তি করা হয়। এর পাঁচ দিন পর আবারো করোনা পজেটিভ অবস্থায় খালাতো ভাইকেও ভর্তি করা হয়। বেশ কিছুদিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় থাকার পর গতকাল রাতে খালু কিছুটা সুস্থ থাকায় তাকে বাসায় নিয়ে আসা হয়। কিন্তু বাসায় ফিরেই হঠাৎ মারা যায় তিনি। এর চার ঘন্টা পড়েই খবর আসে খালাতো ভাই আজগর আলীর অবস্থা ভালোনা তাকে হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) নেয়া হয়। পরে সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় সে।

এদিকে ঠাকুরগাঁও জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ১২৫ জন। মোট নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ২৭৬ জনের। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখখ্যা ৩৫০৯, যার মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ২০৪৫জন ও মৃত্যু ৮৩ জনের।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন