দিনাজপুরে করোনায় নতুন আরো ১১১ জনসহ মোট আক্রান্ত ৯৬৪৮ জন \ নতুন আরো ৩ জনসহ মোট মৃত্যু ১৮৬ জন

দিনাজপুর প্রতিনিধি \ দিনাজপুরে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা সামান্য কমেছে ও মৃতের সংখ্যা সামান্য বেড়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ১১১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় এ পর্যন্তÍ ৯৬৪৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন। আর গত ২৪ ঘন্টায় নতুন আরো ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত জেলায় ১৮৬ জনের মৃত্যু হলো। আর গত ২৪ ঘন্টায় ১০৮ জনসহ এ পর্যন্ত ৬৭৪২ জন সুস্থ হয়েছেন। তবে আক্রান্ত ৯৬৪৮ জনের মধ্যে ৬৭৪২ জন সুস্থ ও ১৮৬ জনের মৃত্যু হওয়ায় বর্তমানে দিনাজপুর জেলায় করোনায় আক্রান্ত রোগির সংখ্যা রয়েছে ২৭২০ জন।
দিনাজপুর সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ আব্দুল কুদ্দুছ জানান, বুধবার (৭ জুলাই) সকাল ৯টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘন্টায় ৩১২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে ১১১ জনের দেহে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত রোগির সংখ্যা পৌঁছেছে ৯৬৪৮ জনে। নতুন আক্রান্ত ১১১ জনের মধ্যে সদর উপজেলাতে ৮১ জন। এছাড়া বিরলে ৯ জন, বীরগঞ্জে একজন, বোচাগঞ্জে দুইজন, হাকিমপুরে ৫ জন, কাহারোলে ৫ জন, নবাবগঞ্জে দুইজন ও পার্বতীপুর উপজেলায় ৬ জন। বুধবার পরীক্ষা বিবেচনায় আক্রান্তের হার ছিল ৩৫ দশমিক ৫৭ শতাংশ। যা আগের দিন ছিল ৩৫ দশমিক ১৯ শতাংশ।
গত ২৪ ঘন্টায় নতুন আরো ১০৮ জনসহ এ পর্যন্ত ৬৭৪২ জন সুস্থ হয়েছেন। আর ২৪ ঘন্টায় বিরামপুর, চিরিরবন্দর ও ফুলবাড়ী উপজেলায় একজন করে ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। নিয়ে জেলায় এ পর্যন্ত ১৮৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।
দিনাজপুরে মোট আক্রান্ত ৯৬৪৮ জনের মধ্যে সদর উপজেলায় সবচেয়ে বেশী ৫৬২৫ জন। এছাড়া বিরলে ৫৫৩, বিরামপুরে ৫৩৩ জন, বীরগঞ্জে ২৪৫ জন, বোচাগঞ্জে ৩৩১ জন, চিরিরবন্দরে ৩২০ জন, ফুলবাড়ীতে ৩৯৬ জন, ঘোড়াঘাটে ৯৯ জন, হাকিমপুরে ২৪২ জন, কাহারোলে ২২৩ জন, খানসামায় ১৫৪ জন, নবাবগঞ্জে ২৬২ ও পার্বতীপুর উপজেলায় ৬৬৫ জন।
মোট মৃত ১৮৬ জনের মধ্যে সদর উপজেলায় ৯৭, বিরলে ১০ জন, বিরামপুরে ১২ জন, বীরগঞ্জে ৬ জন, বোচাগঞ্জে ৬ জন, চিরিরবন্দরে ১৪ জন, ফুলবাড়ীতে ১১ জন, হাকিমপুরে ৩ জন, কাহারোলে ৬ জন, খানসামায় ৫ জন, নবাবগঞ্জে ৪ জন ও পার্বতীপুর উপজেলায় ১২ জন। তবে জেলার ১৩টি উপজেলার মধ্যে ঘোড়াঘাট উপজেলায় এখন পর্যন্ত কারো মৃত্যু হয়নি।
সিভিল সার্জন জানান, গত ২৪ ঘন্টায় ৪৭৫টিসহ এ পর্যন্ত ৫৪৩৪২টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। আর গত ২৪ ঘন্টায় মোট ৩১২টসহ (আরটি পিসিআর-১৮৪টি, রেট-১২৮টি) এ পর্যন্ত ৫১২৬৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ ছাড়া গত ২৪ ঘন্টায় ৩৪৭ জনসহ ৪৪৭১৩ জন কোয়ারেন্টাইন নেয়া হয়েছে এবং ১৪৪ জনসহ ৩৬৮৩৪ জন কোয়ারেন্টাইন হতে ছাড় পেয়েছেন। বর্তমানে হোম আইসোলেশনে রয়েছেন ২৬০৯ জন। আর বর্তমানের হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ১৯৫ জন। দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ১৩৯ জন, দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতালে ২৫ জন ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সমূহে রয়েছে ৩১ জন। তবে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া করোনার উপসর্গযুক্ত আক্রান্ত ১১১ জন ও সন্দেহভাজন ৮৪ জন।
সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ আব্দুল কুদ্দুছ আরো জানান, দিনাজপুর জেলায় বর্তমানে মজুতকৃত অক্সিজেন সিলিন্ডারের সংখ্যা ১২৮৫টি, হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানুলা’র সংখ্যা ১৯টি ও অক্সিজেন কনসেনট্রেটরের সংখ্যা ২৮টি।
এদিকে কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নে জেলা প্রশাসন, সেনাবাহিনী, পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি, আনসারসহ অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য ও স্বেচ্ছাসেবকবৃন্দ মাঠে তৎপর রয়েছে।
উল্লেখ্য, ১ জুলাই বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে সারা দেশের ন্যায় দিনাজপুরে কঠোর লকডাউন শুরু হয়েছে। ৭ জুলাই বুধবার রাত ১২টায় এই লকডাউন শেষ হওয়ার কথা থাকলেও দ্বিতীয় লকডাউন আরো ৭ দিন বৃদ্ধি করায় এই লকডাউন হবে আগামী ১৪ জুলাই বুধবার রাত ১২টায়। এই লকডাউন চলাকালিন সময়ে জরুরী পরিসেবা ছাড়া সকল সরকারী, আধাসরকারী, স্বায়ত্বশাসিত ও বেসরকারী অফিসসমূহ, সকল ধরনের গনপরিবহন ও দোকানপাট বন্ধ থাকবে। তবে কাঁচাবাজার ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি সকাল ৯টায় থেকে বিকেল ৫টায পর্যন্ত উন্মুক্ত স্থানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্রয়-বিক্রয় করতে পারবে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন