প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার (খাদ্য সহায়তা) উপহার বিতরন করেন জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি।

দৈনিক খবর একদিন।। দেশে পর্যাপ্ত পরিমাণ খাদ্য মজুদ আছে উল্লেখ করে জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অঙ্গিকার, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশে কোন মানুষকে না খেয়ে মরতে দেয়া হবে না। করোনাকালীন সময় কর্মহীন বেকার অসহায় ও দুস্থ্য মানুষদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহযোগিতার অংশ হিসেবে এই খাদ্যসামগ্রী উপহার প্রদান করা হচ্ছে। ৩৩৩ নাম্বারে কল করলে প্রয়োজনে যাদের বাসায় খাবার নেই তাদের বাসায় খাবার পৌছে দেয়া হবে। বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, মাতৃত্বকালীন ভাতা, মুক্তিযোদ্ধা ভাতাসহ বিভিন্ন ভাতা মানুষের কষ্ট লাঘবের জন্য সরাসরি ব্যাংকের একাউন্টে পৌছে দেয়ার ব্যবস্থা করেছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষনা করেছেন পর্যায় ক্রমের দেশের সকল মানুষকে ভ্যকসিনের আওতায় আনা হবে। ইতিমধ্যেই তার দুরদর্শী কুটনৈতিক তৎপরতার কারনে দেশে ভ্যাকসিন কার্যক্রম চালু হয়েছে। এবং সবাইকে বিনামুল্যে করোনা টেস্ট ও ভ্যাকসিন দেয়া হচ্ছে। তিনি সবাইকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে করোনা প্রতিরোধে এগিয়ে আসার আহবান জানান।


৮ জুলাই বৃহস্পতিবার দিনাজপুর শিশু একাডেমী মিলনায়তনে করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে চলমান লকডাউনের কারনে কর্মহীন হয়ে পড়া হোটেল শ্রমিকদের মাঝে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার (খাদ্য সহায়তা) উপহার বিতরন অনুষ্ঠানে জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি এসব কথা বলেন।
দিনাজপুর জেলা প্রশাসক খালেদ মোহাম্মদ জাকীর সভাপতিত্বে ও এডিসি জেনারেল শরিফুল ইসলামের সঞ্চালনে বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন বিপিএম, পিপিএম (বার), দিনাজপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ইমদাদ সরকার, ভাইস চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম সোহাগ, শহর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রায়হান কবীর সোহাগ, সাধারন সম্পাদক এসএম খালেকুজ্জামান রাজু, হোটেল শ্রমিক নেতা শহিদুল ইসলাম প্রমুখ।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন